ছোট বেলার সেক্স

Go down

ছোট বেলার সেক্স

Post  Admin on Sun Aug 29, 2010 3:08 pm

আমাদের বাড়ি গ্রামে। আমি তখন ১২ কি ১৩। আমাকে একটা ছেলে খুব ভালবাসতো। আমি কখনো ভাবতে পারিনি যে আমার সাথে তার …. পর্যন্ত সম্পর্ক থাকবে। একদিন সকালে অনাঙ্কাখিত ঘটনা ঘটে গেল। আমি সেই দিন গোসল করতে যাবার সময়। তার সাথে দেখা পাশের বাড়ির উঠানে। তখন সে আমাকে বলল- আজ কিন্তু দিতে হবে। আমি কোন কথা বললাম না। দুপুরের পরে দেখি সে ঈদের নামাজ পড়ে বাড়িতে এসে জামা খুলে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিতে যাচ্ছে। যাওয়ার সময় সে আমায় বলল- তুমি কোথায় যাচ্ছ। সন্ধ্যায় বাড়িতে থাকবা।
সন্ধার দিকে আমার ছোট ভাইকে দিয়ে তাকে ডাকতে পাঠালাম। সে খাচ্ছিল, খাওয়া শেষ হতে না হতেই হাত ধুয়ে চলে আসলো। আমি কলা গাছের আড়ালে দাড়িয়ে ছিলাম। অন্ধকার রাত ছিল। সে কাছে আসতেই আমি বললাম- ছোট ভাই তুই বাড়ি যা আমি আসছি। ছোট ভাই চলে যাওয়ার পরে তাকে জড়িয়ে ধরলাম। এক সময় ওর সোনাটা গরম হয়ে উঠলো, সোনাটার টান টান অবস্থা, দুজনই সামনা সামনি দাড়িয়ে ছিলাম। এক সময় আমার গুদের কাছে লঙ্গির উপর দিয়ে তার শক্ত সোনাটা গুদে র্স্পশ করলো। তখন মনে মনে খুব উত্তেজনা বিরাজ করছিল। আমি আর ঠিক থাকতে পারলাম না। আমি তাকে ফ্রেন্স কিস দিলাম। সে আমাকে নিয়ে চলে গেল বাড়ির পাশের একটা তিলের ক্ষেতে। তিল গাছ গুলো ছিল অনেক বড় বড় ঠিক চোদার মত জায়গা। অনেক খানি তিল ক্ষেত ভেঙে মাটির সাথে লাগিয়ে দিল। আমি সেদিন শাড়ি পড়েছিলাম শখ করে। ওর গায়ে তখন ছিল সবুজ রঙয়ের হাফ হাতা গেঞ্জি। আমি তাকে বললাম- তোমার গেঞ্জি মাটিতে পাড়। ও বলল- তোমার শাড়িটা পাড়োনা। ওদিকে তার খাড়া শক্ত সোনাটা উড়ামোড়া করছে। কি করবে উপায় নাই দেখে তার গায়ের গেঞ্জি খুলে মাটিতে তিল ক্ষেতের উপরে পাড়ল। আমাকে চিত করে শুয়ে দিল। আমার পেটিকোট উল্টিয়ে পেটের উপর রাখল। এর পর তার টান টান শক্ত সোনাটা আমার হাত দিয়ে নাড়তে লাগলাম আর সে আমার বিলাউজের বোতাম খুলতে লাগল। আমার বুকে মোচড় মারতে মারতে মারতে তার লোহার মত শক্ত ধোনটা আমার গুদের সাথে লাগাল, আমি চেচিয়ে উঠলাম। ওরে মাগো…….. বলে। আমার ছোট জায়গায় তার শক্ত মোটা ধোনটা কিছুতেই ঢুকতে চাই না। সে আমাকে তার শক্ত সোনাটা ঢুকিয়ে নেবার জন্য অনুরোধ করলো। তারপর সে আমার দু পা দু হাত দিয়ে ধরে রাখল। পরে গুটো দিতে দিতে আমার গায়ের উপর শুয়ে পড়ল। আর দুধ খেতে লাগল। সে আমাকে বলল তোমার কি কষ্ট হচ্ছে? আমি বললাম, হ্যা। শুনে সে আরো জোরে জোরে গুতে দিতে লাগল। আর দুধে হাত দিয়ে দুধ টিপতে দুধ দুটো ব্যথা করে ফেললো। এক সময় সে আমার ভিতর থেকে তার সোনা বের করে আনলো। দেখি চিড়িত করে কি যেন ছুটে গেল। তখন আমি আবার তাকে চুমা দিতে লাগলাম। কয়েক মিনিট পরই আবার তার সোনা গরম হয়ে গেল। তখন আবার তাড়াতাড়ি শুয়ে দিয়ে তার পিচলে সোনা আমার জাগায় লাগালাম। তার জলন্ত আগুনের মত গরম সোনাটাকে খুব সহজেই ঢুকিয়ে দিয়ে জোরে জোরে গুটা মারতে লাগলো। তখন খুব মজা লাগছিল। আমার ভিতর সে যত গুতো দিচ্চিল ততই তার সোনা আরো শক্ত হচ্চিল। কিছুক্ষন পরে আমার বুকের কাছ থেকে একটা ঝাকুনি দিয়ে সুড় সুড়ি দিয়ে নিচে নামছিল। আর আমি আরামে চোখ বন্ধ করে ওকে জড়িয়ে ধরলাম। তারপর খুব ঘন ঘন গুতো মারতে লাগল, পরে যখন তার সোনা আমার ইয়ের ভিতরে বমি করে দিল তখন তার শক্ত সোনাটা আমার ভোগার ভিতরে ঢোকানো ছিল এবং আমার কি যে আরাম লাগছিল তখন। তাকে আরো শক্ত করে জড়িয়ে ধরলাম। আমি বললাম; আমি এমন মজা কোন দিনই পাইনি। তখণ আমি ঘেমে একে বারে গোসল করে উঠেছি। সে তখন আমার সারা গায়ে হাত দিয়ে দেখছিল। আমার চুল বিহিন গুদ দেখে নাকি ওর মাথা হট হয়ে গিয়েছিল। । সে চলে যেতে চাইলে আমি বললাম- আর একটু থাকনা। তাই বলে আমি তাকে অনেক চুমা দিলাম তা হিসাব করে বলা যাবে না। সে দিনের পর থেকে এই মজার খেলার লাইসেন্স তাকে দিয়ে বললাম- তুমি যেদিন আমাকে করতে চাবে আমি তোমাকে সেদিনই আমাকে করতে দেব। এর পর আর সুযোগ হয়নি তার সোনাকে খাওয়ার । এখন সে বাইরে থাকে । গ্রামে মাঝে মাঝে যাই কিন্তু তাকে পাওয়া যায় না। কৈশরের সেই সময়ের কথা আমি কোনদিন ভুলতে পারবো না।

Admin
Admin

Posts : 280
Reputation : 0
Join date : 13/08/2010

View user profile http://choti.createfreeforum.net

Back to top Go down

Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum